ব্যাকগ্রাউন্ড

ফেইসবুকে!

মুক্তচিন্তা ব্লগের সকল লেখা পিডিএফ করার অনুরোধ




মুক্তচিন্তা ব্লগের সকল লেখা পিডিএফ করার অনুরোধ
সাইয়িদ রফিকুল হক

 
ব্লগ-দুনিয়া লেখালেখি করার একটা বিস্ময়কর জগৎ। এখন প্রতিভাবান মাত্রই লেখালেখি করতে পারেন। লিখতে কারও কোনো বাধা নাই। ব্লগগুলো আমাদের মতো নবীন-প্রবীণ লেখকদের লেখালেখির একটা বিরাট সুযোগসৃষ্টি করে দিয়েছেন। আগে আমাদের একটা ‘কবিতা’ বা ‘গল্প’ প্রকাশ করার জন্য দৈনিক পত্রিকার সাহিত্যসম্পাদক কিংবা বার্তাসম্পাদককে তৈল দিতে কিংবা তোষামোদী করতে হতো। আর যারা পত্রিকার হোমরাচোমরাদের তৈলমর্দন কিংবা তোষামোদী করতে পারতেন না—তাদের লেখা সহজে ছাপা হতো না। এব্যাপারে দৈনিক পত্রিকাগুলো ভদ্রবেশী স্বৈরাচার। তাদের কাছে মাসের-পর-মাস ধর্না দিলেও তারা পরিচিত ছাড়া আর-কারও লেখা ছাপাতে চাইতো না, এবং এখনও ছাপায় না।  আমাদের সামনে ব্লগ-জগৎ-সৃষ্টি হওয়ায় এখন আর তা করতে হয় না। দৈনিক পত্রিকার অফিস অনেক ব্লগার চেনেও না। আর সেখানে ধর্না দেওয়ার তো প্রশ্নই ওঠে না।
 
বলছিলাম, প্রতিভাবান মাত্রই এখন লেখালেখির বিরাট সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু এর মধ্যেও ঢুকে পড়েছে তস্করশ্রেণী। এরা নিজেরা কিছু লিখতে পারে না। কিন্তু অন্যের লেখা চুরি করে নিজের নামে চালিয়ে দিতে সামান্য লজ্জাবোধও করে না। এরা আমাদের সমাজের অতীব নিকৃষ্টশ্রেণী। এরা নিজেরা কিছু লিখতে পারে না বলে অন্যের লেখা চুরি করতে দ্বিধা করে না। ইদানীং একশ্রেণীর ভদ্রবেশী চোরের উদ্ভব হয়েছে। এরা অন্যের লেখা চুরি করে লেখকের নাম-পরিচয় না দিয়ে শুধু তার লেখাটা নিজেদের ফেসবুকের টাইমলাইনে বা অনলাইন-পেইজে পোস্ট করে নিচে ইংরেজিতে ছোট্ট করে লিখে দেয়: Collected! অথচ, এরা লেখকের নাম জানে। আর লেখকের অনুমতি ব্যতিরেকে এই অপকর্মগুলো করছে।
 
এখন বেশ কয়েকটি ব্লগ পিডিএফ করা হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে—সামহোয়ার ইন ব্লগ ও তারুণ্য ব্লগ। এখান থেকে লেখাচোররা আর কোনো লেখাচুরি করতে পারে না। এই দুটি ব্লগের কারও কোনো লেখা কোনোভাবেই কপি, পেস্ট করা যায় না।
 
মুক্তচিন্তা ব্লগের লেখাও আমি ‘কালেক্টেড (Collected!) হতে দেখেছি। তাই, সম্মানিত ব্লগ-কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ রইলো: সামহোয়ার ইন ব্লগের মতো আমাদের প্রিয় মুক্তচিন্তা ব্লগটি সম্পূর্ণ পিডিএফ করে দেওয়া হোক। তাহলে, সকল ব্লগারের লেখা তস্করশ্রেণী-কর্তৃক কপি, পেস্ট হওয়ার হাত থেকে রেহাই পাবে। অথবা ব্লগারদের জন্য “পিডিএফ-অপশন” চালু করে দিন যাতে—যার ইচ্ছা তিনি তার লেখা পিডিএফ করে প্রকাশ করতে পারবেন।
 
একজন ভুক্তভোগী হিসাবে জনস্বার্থে লেখাটি এখানে তুলে ধরা হলো। আশা করি, সম্মানিত কর্তৃপক্ষ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করবেন। ধন্যবাদ ও শুভকামনা।
 
 
সাইয়িদ রফিকুল হক
১৭/০১/২০১৯
 

ছবি
সেকশনঃ সাম্প্রতিক বিষয়
লিখেছেনঃ সাইয়িদ রফিকুল হক১ তারিখঃ 17/01/2019 01:34 PM
সর্বমোট 1475 বার পঠিত
ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুণ

সার্চ