ব্যাকগ্রাউন্ড

ফেইসবুকে!

২০১৩ শাহবাগ আন্দোলনের নেতৃত্ব কারা দিয়েছিলো?

২০১৩ এর ৫ ফেব্রুয়ারী থেকে সংগঠিত শাহবাগ আন্দোলন যা মুলত ১৯৭১ সনের মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী পরাজিত পক্ষের যুদ্ধাপরাধের বিচারের সর্বোচ্চ সাজার দাবীতে গড়ে ওঠা ব্লগার ও অনলাইন একটিভিস্টদের একটি আন্দোলন। পরবর্তীতে এই আন্দোলনে যোগ দিয়েছে সাধারণ জনতা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও তাদের ছাত্র সংগঠনগুলো। 

অনলাইন একটিভিস্ট হিসাবে সেই ইয়াহু যুগ থেকে অনলাইনে পাকিস্তানপন্থী একটিভিস্টদের সাথে লড়তে লড়তে আমাদের বাংলা কমিউনিটি ব্লগ যুগে প্রবেশ ২০০৭ সালে। তার পর কেটে গ্যাছে আরো বহু বছর। সামহোয়্যার ইন ব্লগ থেকে শুরু করে প্রথম আলো ব্লগ সহ বহু প্লাটর্ফম পেরিয়ে আমার ব্লগের মাধ্যমে যুদ্ধাপরাধের বিচারের দাবীতে সমমনা (সম পথের না) ব্লগারদের যাত্রা। শিবিরের সোনার বাংলা ব্লগের উথ্থানো একই সময়ে। পাশাপাশি আরো কিছু ব্লগ কমিউনিটি ব্লগিঙয়ের নামে গ্রুপ ফর্মেশনের চেস্টা করে গ্যাছে। সচলায়তন ও মুক্তমনা ব্লগ নিজেদের ঘরানাতে সাপোর্টদিয়ে গ্যাছে। এই মুক্তচিন্তা ব্লগের যাত্রা শাহবাগ আন্দোলন শুরু হবার পর যখন এলে বেলে যারা জীবনেও ব্লগের নাম শুনেনি তাদের হিড়িক পড়েছে ব্লগ আইডি খুলে ব্লগার হবার ইচ্ছা (আসলে ধান্দাবাজী)। এই ব্লগেও প্রচুর আইডি আছে এমন সবের যারা মৌসুমী ব্লগার। প্রজন্ম ব্লগ নামে আরেকটা ব্লগ হয়েছিলো ২০১৩ এর ফেব্রুয়ারীতে, যা বর্তমানে বন্ধ আছে। ওখানে শাহবাগ আন্দোলনের শুরুর দিকের কিছু বর্ণনা ছিলো ছবি সহ (আন্দোলন শুরু হবার কিছুদিন পরই অবশ্য ছবি সরিয়ে ফেলা হয়েছিলো ইতিহাসকে বিকৃত করতে)। মুলত কারা আন্দোলনের প্রথমদিকের জমায়েত ও কারা আন্দোলনকে সংগঠিত করেছিলো সেটাকে পকেটস্থ করবার ঘৃণ্য মানসিকতা থেকেই কারসাজি করা হয়েছে। 

এটা সঠিক যে, শাহবাগ আন্দোলন ব্লগারদের (যারা একই সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব ছিলো - অনলাইন এক্টিভিস্ট) নেতৃত্ব ও তাদের সংগঠন বোয়ানের তত্বাবধানে সংগঠিত হয়েছিলো এবং আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে গ্যাছে লক্ষ্যেরদিকে। ২০১৩ এর ৮ ফেব্রুয়ারী তারিখের পর এক শ্রেণীর দেউলিয়া এক্টিভিস্ট ও ব্লগার কাছা খুলে এই আন্দোলনের বিরোধীতা করতেও পিছপা হয়নি। মজার বিষয় হলো ঐ শ্রেনীটাও যুদ্ধাপরাধের বিচায় চায় বলে আজ অবধি দাবী অক্ষুন্ন রেখেছে। 

ব্লগারদের ভিতরেও দলাদলী কোন্দল হয়েছে প্রচুর। মৌসুমী ব্লগার, বিশেষ পক্ষিয় ব্লগার ও জেনুইন ব্লগার সহ অনলাইন এক্টিভিস্ট নানান মতের ও পথের মানুষ এতে সামিল হয়েছে। অনেকেই মনগড়া একপক্ষীয় ইতিহাস বেত্বাও হতে চেস্টা করেছে, বানিয়ে ফেলেছে তথ্যচিত্রও। যদিও সামনাসামনি ব্লগিংয়ের ইতিহাস যদি জানতে চান তবে মুখস্ত কিছু কথা বলা ছাড়া আর কিছু পাওয়া যাবে না এদের কাছ থেকে। 

বর্তমানে কিছু মানুষ ৭১ এর চেতনার কথা বলে এই আন্দোলনকে নিজেদের সফলতার স্মারক করতে চাইছে, তাই এই পোস্ট। এটা পরিস্কার যে কিছু সময় বসে থাকা ও মাইকে বক্তব্য রাখাটা আন্দোলন নয়। ব্লগাররা এই আন্দোলন প্রায় দেড়দশক ব্যাপী পরিশ্রম করে তৈরী করেছে। অনেক ব্লগারকে নাস্তিক আখ্যা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে, দেশ ছাড়া করা হয়েছে অনেককেই ( দেশ ছাড়া বেশীর ভাগই আবার মৌসুমী ও সুবিধাবাদী)। এই আন্দোলন তাই পকেটস্থ করবার প্রয়াস মিথ্যাবাদীতার নামান্তর। মজার বিষয় হলো এরাই আবার আমাদের নাম দিয়েছে দলদাস। আপনারা এই দলদাসদের পিছনে একসময় হেঁটেছেন এটা ভুলে যাবেন না, এই দলদাসরাই জীবনের ঝুকি নিয়ে নিজের খেয়ে পড়ে ও ব্যক্তিগত ক্ষতি করে দেশকে একধাপ এগিয়ে কলংকমুক্ত করে সামনে আগানোর পথ দেখিয়েছে এটা মনে রাখবেন। এই দলদাসেরাই কখনো কারো কাছে কিছু পেতে হাত পাতেনি, আন্দোলন শেষে নিজ নিজ কাজে ফিরেছে। 

ছবি
সেকশনঃ সাধারণ পোস্ট
লিখেছেনঃ দুরন্ত.. তারিখঃ 02/12/2018 09:13 PM
সর্বমোট 115 বার পঠিত
ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুণ

সার্চ