ব্যাকগ্রাউন্ড

ফেইসবুকে!

সামাজিক আন্দোলন, জামাত ও বাংলাদেশের তথাকথিত বাম

Marquette University, যুক্তরাষ্ট্রের গবেষক মুজতাবা ইসানির একটি আর্টিক্যাল থেকে সামাজিক আন্দোলন হিসাবে জামাতের উথ্থান পতন নিয়ে একটি ধারণা পাওয়া যায়। আমরা যদি এর সারসংক্ষেপে তাকাই তবে দেখবো মুজতাবা ইসানি বলছেন - 

Mawdudi is reported to have said “When historians would write of the Jamaat they will say it was another tajdid movement that rose and fell” (Nasr 1996, 45). Despite half-a-century of its existence, the Jamaat-e-Islami of Pakistan is at bay. Its mixed record includes survival in the face of state repression and some impact on political decision making, but a general failure in the attempt to capture power avowedly for the Islamization of Pakistan. A brainchild of the great Maulana Abu A’la Mawdudi, the Jamaat was a social movement of immense potential, but neither was it able to reach its goal nor was it able follow the plan Mawdudi laid down for it.
 
[Mawdudi (1903-1979) was a Sunni Pakistani journalist theologian and a Muslim revivalist leader and Islamist thinker.  He founded Jamaat-e-Islami in 1941.  Ed.]

এখানে যদিও পাকিস্তানী জামাতিদের কথা বলা হয়েছে তবে তা বাংলাদেশে তাদের দোসর জামাতিরাও ভিন্ন নয়। আমরাও বাংলাদেশে দেখবো বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কান্ডে ধর্মকে ব্যবহার করে বাণিজ্য সহ সংগঠন করবার প্রয়াস চলমান ছিলো ও আছে। এটা কখোনো প্রকাশ্য বা কখোনো গোপণে। শিশু শ্রেনীর ছাত্র থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় স্তর পর্যন্ত এই সামাজিক রাজনৈতিক কাজ বিদ্যমান। বাণিজ্য ও রাজনিতীর একেক স্তরে এর রূপো ভিন্ন। 

আমাদের বামেরাও সেই একই স্ট্রাটেজী নিয়েছে এখন। সামাজিক আন্দোলনে মনোনিবেশ করেছে। তবে মিডিয়া ব্যতিত আর কোথাও তেমন করে আর্থিক বা প্রভাবে যেতে পারেনি। এটা অনস্বীকার্য যে জামাতের রাজনৈতিক ধারাতে তথা সাংগঠনিক ধারাতে কম্যুনিষ্ট প্রভাব আছে। সার্বিক দিকে দেখলে মোটামুটি একই শুধু ধর্ম ও নারীর প্রতি দৃষ্টিভঙ্গী ছাড়া। বাংলাদেশে স্বাধীনতার যুদ্ধ নিয়েও এদের মতভেদ আছে তবে নতুন প্রজন্মের তথাকথিত আন্তর্জাতিকতাবাদী বামদের কাছে এটাও আলাদা নয়। 

মোদুদীর লক্ষ্য ছিলো ইসলামী বিপ্লব আর বামদের স্বপ্ন হলো কম্যুনিষ্ট বিপ্লব। আলাদা ধর্ম আর নারীর প্রতি দৃষ্টিভঙ্গিতে। নারীর প্রতি দৃষ্টিভঙ্গিতে আলাদা হলেও উদ্দেশ্য আবার একই। একদল ঘরের ভিতরে আরেকদল যেখানে যেমন এই যা। এর জন্য দুই দলই এবিউজারের ভুমিকাতে আছে। একদল দেখায় অনন্ত স্বর্গের লোভ আরেক দল দেখায় অনন্ত সুখের লোভ। তার উদাহরণ তারা আবার সৃস্টি করে মাঝে মধ্যে দুনিয়াতেই। মৃদ্রার এপিঠ ওপিঠ বলা যায়। এর জন্য একদল মাঠে নামে মাহমুদুরের পক্ষে আরেকদল শহীদুলের পক্ষে । বাংলাদেশের স্বাধীনতার মেন্ডেট বলে স্বীকৃত ১৯৭০ এর নির্বাচনে স্বাধীনতার বিরোধীতা করা ও পরবর্তিতে পাকিস্তানের দোসর মুসলীম লীগ ও নেজামে ইসলাম পার্টির উত্তর পুরুষেরা এখন এসব রাজনিতীর পৃষ্ঠপোষক। বংশানুক্রমিক বাংলাদেশ বিরোধীতা সরাসরি না বলে আন্তর্জাতিকতাবাদী বলে একটা গেনী ভাব নিতে দেখা যায় এদের। ১৯৭৫ এর পর সুবিধাভোগী হিসাবে আমজনতার থেকে অনেকটাই শিক্ষা অর্থে এগিয়ে আছে এই গোষ্ঠী। বিগত কোটা আন্দোলন ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে যুগপদ জামাত শিবির ও বামদের আন্দোলন আমরা দেখেছি। বর্তমানে নির্বাচন কেন্দ্রীক রাজনিতীতেও একই আন্দোলন দেখা যাচ্ছে। 

রামপাল, তেল গ্যাস সহ নানান আন্দোলনে একত্রে চলছে এই ঐক্যতান। তবে একটা ঘোমটা একটা আছে। শাহবাগ আন্দোলনকে নষ্ট করা সহ এই আন্দোলনের বেনিফিট বর্তমান প্রজন্মকে সঠিক ভাবে বুঝতে না দেবার দায়টা বামদেরই নিতে হবে। তথাকথিত মুখপাত্রের পতন ও সেই সাথে তাকে ঘিরে রাখা ও প্রচারের আলোতে রাখবার কুশীলবরা একবারো তার নাম নেয়না এখন! কোন সে কারণ? 

 

ছবি
সেকশনঃ সাধারণ পোস্ট
লিখেছেনঃ দুরন্ত.. তারিখঃ 08/11/2018 12:15 AM
সর্বমোট 56 বার পঠিত
ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুণ

সার্চ