ব্যাকগ্রাউন্ড

ফেইসবুকে!

এলোমেলো ভাবনা - ১

দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট হচ্ছে আর বিচার হচ্ছে রাজনৈতিক কারণে এক দু কোটি টাকার ঝামেলাতে ! এটা এখনকার দিনে সাধারণ আলোচনা সুশীল ও তথাকথিত বিরোধী মহলে। এই আলোচনার কারণ আবার সম্পূর্ণ রাজনৈতিক কারণেই। কারণ একদিকে বিচার হচ্ছে বিগত সরকারের আমলের দুর্ণিতির অপরদিকে দৃশ্যমান নয় সংবাদ পত্রের পাতাতে আসা হাজার কোটি টাকা লোপাটের কাহিনীর। এর ফলে দুর্নিতিবাজরা একটা সুযোগ পাচ্ছে তাদের পোষ্যদের মাধ্যমে একটা শোরগোল তুলে যে হাজার কোটি টাকা নিয়ে কোন মাথা ব্যথা নেই তবে রাজনৈতিক কারণে মাত্র কয়েক কোটি টাকা নিয়ে বিচার হচ্ছে , যার সুরের প্রধাণ অনুষঙ্গ হচ্ছে আমরা ছোট চোর সুতরাং আমাদের ছেড়ে দিতে হবে। এই ছোট চোরদের সবাই মোটামোটি আতংকিত হয়েই আজ এক্ট্টা হয়েছে ক্ষমতাসীনদের বিপরীতে। তাদের আতংকের বিষয়টি ধরা পরে তাদের আচরণে ও দৈনন্দিন চলার পথের হিসাব নিকাশে। 

দৃশ্যমান আয় না থাকবার পরও তাদের রাজকীয় চলাচল ও বেনসন বিপ্লব আমাদের আতংকিত করে আমাদের দেশের ভবিষ্যত নিয়ে। আমরা কোথায় যাচ্ছি ! আমাদের যে রাজনৈতিক নেতৃত্ব সেটা সেই স্বাধীনতার আন্দোলনের ভিতর দিয়ে গড়া নেতৃত্বের হাত ধরেই এখোনো চলছে , সামনে বিকল্প হবার মতো নেতৃত্ব নেই বললেই চলে। উদ্ভট যুক্তিবোধ ও গালাগালি হচ্ছে এখনকার চলমান বিষয়। এই শ্রেনীর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের লেখা যদি পড়েন তবে গালাগালি ছাড়া গঠনমুলক কিছু পাবেন না সেটা শতভাগ আস্থার সাথে বলা যায়। আগেই বলা আতংকের কারণে এরা আজ হিতাহিত জ্ঞানশূণ্যতায় ভুগছে। ৫ বারের দুর্নিতির চ্যাম্পিয়নশীপকে আবার লাইনে তুলতে দিনরাত এদের পরিশ্রম করাটা দেখলে এর বেশী কিছু মনে হয় না। সেই সাথে মৌলবাদের মাথাচাড়া দেওয়ার পিছনে উস্কাণী তো নিত্যদিনের ঘটনা। 

সড়কে নিরাপদ চলাচল নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে ঘটা আন্দোলনে অবিমৃশ্যতা স্পস্ট। ফুটপাথের যথাযথ ব্যবহার ও অবৈধ দখল মুক্ত করা নিয়ে টু শব্দটি কেউ শুনেনি! রাস্তায় হাটবেন আর গাড়ির নীচে পড়বেন না এটাতো কোন যুক্তিসংগত কথা না। সারা পৃথিবীতে বি সেফ ইন রোড আমাদের দেশে নিরাপদ সড়ক চাই হয়ে গ্যালো! কি আজীব যুক্তিবোধ - তারপরো রাস্তায় দৌড়াবেন, হাটবেন, হাত তুলে ঘন্টায় ৬০ কিমি বেগের গাড়ীকে সিগন্যাল দিবেন থেমে যেতে আবার যানজট নিয়ে বক্তিমা লিখবেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে! প্রাইভেট গাড়ীতে সিএনজি বন্ধ করা দরকার এটা বলবেন না, বিকেন্দ্রী করণ দরকার তাও বলবেন না! বলবেন নিরাপদ সড়ক চাই , কয়েক কোটি টাকার বিচার রাজনৈতিক বিচার ইত্যাদি। 

সরকারের উচিৎ ব্যাংক খাতের অনিয়মের জন্য জড়িতদের ঠিকুজী প্রকাশ করে দেওয়া, এমনকি ছাত্র জীবনে ওরা কে কি করত তারো বিবরণ প্রকাশ করা। দুর্নিতিমুক্ত শতভাগ সব এমন টা হবে না তবে অনিয়ম মুক্ত করাটা জরুরী। সার্বিক উন্নতির প্রয়োজন উন্নয়নের পাশাপাশি। সেই সাথে উস্কানীদাতাদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনাটাও জরুরী। প্রতিবিভাগে স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল স্থাপন করে এসংক্রান্ত বিচার ব্যবস্থা চালু করতে হবে। আমরা যে মানবিক সমাজ চিন্তা করি সেখানে আমার খুশী ধরনের চিন্তার সুযোগ নেই কারণ এটা সভ্যতার বিপরীতেই কাজ করে যার অপর নাম পশুবাদ। 

ছবি
সেকশনঃ সাধারণ পোস্ট
লিখেছেনঃ দুরন্ত.. তারিখঃ 30/10/2018 12:02 AM
সর্বমোট 265 বার পঠিত
ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুণ

সার্চ