ব্যাকগ্রাউন্ড

মুক্তচিন্তার বিশ্ব

আপনার পছন্দের যে কোন কিছু সহব্লগারদের সাথে শেয়ার করতে ও শেয়ার কৃত বিষয় জানতে এখানে ক্লিক করুণ

ফেইসবুকে!

ডায়াবেটিস আছে কিনা পরীক্ষা করান

নিজেকে এক্সপার্ট হিসেবে তৈরি করার জন্য ডায়াবেটিস রোগ নিয়ে পড়াশুনা করছি। শুধু বাংলাদেশেই নয়, ডায়াবেটিস আক্রান্তের সংখ্যা এবং এ রোগে মৃত্যুর সংখ্যা সারা বিশ্বেই ভয়াবহ। 

জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেট অনুযায়ী ২০১৪ সালে বাংলাদেশে ডায়াবেটিস আক্রান্ত পুরুষের সংখ্যা ছিল ১০ দশমিক ৩ শতাংশ এবং নারীর সংখ্যা ছিল ৯ দশমিক ৩ শতাংশ। এ সংখ্যা খুব দ্রুত বাড়ছে। ২০০০ সালে এ সংখ্যা ছিল ৭.৫ শতাংশ। 

২০১১ সালের বাংলাদেশ জনমিতি ও স্বাস্থ্য জরিপ অনুযায়ী বাংলাদেশে প্রাপ্তবয়স্ক নারী-পুরুষের ১১ শতাংশ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত এবং ২৫ শতাংশ প্রাক-ডায়াবেটিস পর্যায়ে আছে অর্থাৎ তাঁদের রক্তে গ্লুকোজ বা শর্করার পরিমাণ কাঙ্ক্ষিত পরিমাণের চেয়ে বেশি আছে। যে কোন সময়ে তাঁরা ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত হতে পারে। 

মোট মৃত্যুর ১৪.২ ভাগ মৃত্যু হয় শুধুমাত্র ডায়াবেটিস এবং এর জটিলতাগত কারণে। খুবই এলার্মিং বিষয়। বাংলাদেশে শতকরা ৫০ ভাগ ডায়াবেটিস আক্রান্ত মানুষ সনাক্তের বাইরে রয়েছে অর্থাৎ তাঁদের ডায়াবেটিস আছে কিন্তু তাঁরা জানেই না যে তারা ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত। এটিও খুব ভয়ঙ্কর চিত্র। যে কোন সময়ে হঠাৎ জীবন সংশয় হতে পারে। 

প্রতিদিনের খাদ্যাভ্যাস, অভ্যাসগত পরিবর্তন এবং একটু শারীরিক কর্মশীলতা মানুষের ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে পারে। এ অভ্যাসগুলি যাদের ডায়াবেটিস নেই তাদেরকে ডায়াবেটিস হবার ঝুঁকি থেকে নিরাপদে রাখে, যাদের প্রাক-ডায়াবেটিস আছে তাদের ডায়াবেটিস হবার ঝুঁকি থেকে অনেকটাই নিরাপদে রাখে এবং যাদের ডায়াবেটিস আছে তাদেরকে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রেখে এর জটিলতা থেকে রক্ষা করতে কার্যকর ভূমিকা রাখে। 

প্রতিটি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের উচিত বছরে কমপক্ষে ৪ বার ডায়াবেটিস আছে কিনা সেটা পরীক্ষা করান। শরীরটা আপনার- এই ভাল আছেন তো এই খারাপ হয়ে যাওয়া মুহূর্তের ব্যাপার। নিজের সুস্থতার বিষয়ে সচেতন থাকুন। সবাইকেই একদিন পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়ে চলে যেতে হবে। যতদিন বেঁচে থাকা ততদিন যেন সুস্থভাবে বেঁচে থাকা যায় সে চেষ্টাই করতে হবে। 

সুস্থভাবে বেঁচে থাকাটা খুব দরকার। মানুষ শুধু নিজের জন্য বাঁচে না। অন্যের প্রয়োজনেও মানুষকে বেঁচে থাকতে হয়। আসুন অন্যের জন্যও বাঁচি। ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন। জীবন সুন্দর হোক। 
*
পুনশ্চ: ডায়াবেটিস রোগ নির্ণয়ের জন্য প্রাথমিকভাবে বিশ্বস্ত ল্যাবরেটরিতে শুধুমাত্র OGTT এবং HbA1c টেস্ট করান, অনেক টেস্ট করিয়ে টাকা নষ্ট করার দরকার নাই।
*
লেখাটি ফেসবুকে প্রকাশিত। 

ছবি
সেকশনঃ সাধারণ পোস্ট
লিখেছেনঃ যুক্তিযুক্ত তারিখঃ 18/10/2017 11:58 AM
সর্বমোট 531 বার পঠিত
ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুণ

সার্চ